২রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার

ফিরছেন ঋত্বিক

আপডেট: জানুয়ারি ২৪, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

২০১৭ সালের ২৫ জানুয়ারি সর্বশেষ ছবি মুক্তি পায় তার। নাম ‘কাবিল’। এরপর বলিউডে কোনো আওয়াজই ছিল না ঋত্বিক রোশনের।

অথচ ‘কৃষ-৩’-এর বাম্পারহিট ব্যবসার পর তাকে নিয়েই ছিল বলিউডি মাতম। ‘কাবিল’-এর ব্যর্থতার পর ঋত্বিককেও যেন ভুলে গিয়েছিল বলিউডবাসী। পুরো দুটি বছর ছিলেন পর্দার বাইরে।

অবশেষে খরা কাটছে এ অভিনেতার। ফিরছেন তিনি। এবার ফিরছেন একেবারে ভিন্ন আঙ্গিকের ছবি নিয়ে। অনেকটা বায়োগ্রাফিক্যালও বলা যায়। নাম ‘সুপার থার্টি’। এক ভারতীয় গণিতবিদের জীবনী নিয়ে ছবিটি নির্মিত হয়েছে।

এ বছরই মুক্তির তালিকায় রয়েছে। শুধু তাই নয়, চলতি বছর আরও দুটি ছবি মুক্তির তালিকায় রয়েছে ঋত্বিকের। তবে ‘সুপার থার্টি’র দিকেই সবার নজর। সমালোচকদের মতে, সফলতা যদি পেতে হয় কিংবা ধরতে হয়, তাহলে এ ছবি দিয়েই সেটা করতে হবে তাকে।

অথচ ক্যারিয়ারে এমন পরীক্ষার মুখোমুখি কখনই হতে হয়নি ঋত্বিককে। বলিউডের সর্বাধিক জনপ্রিয় তারকা খচিত অভিনেতাদের মধ্যে তিনি অন্যতম।

অভিনয়ের পাশাপাশি নাচেও রয়েছে তার জাদুকরি নৈপুণ্য। বাবা রাকেশ রোশন চলচ্চিত্র পরিচালক হলেও বলিউডে ঋত্বিকের পথচলা কখনই অনুকূলে ছিল না। নিজের স্বপ্নচূড়ায় পৌঁছতে অনেক কাঠখড় পোড়াতে হয় তাকে। নিজ গুণেই নিজের অবস্থান তৈরি করেছেন এ অভিনেতা।

১৯৮০ সালে ‘আশা’, ১৯৮১ সালে ‘আস পাস’ এ দুটি চলচ্চিত্রের একটি করে গানে বিশেষ উপস্থিতি এবং ১৯৮৬ সালে ‘ভগবান দাদা’ চলচ্চিত্রে শিশুশিল্পী হিসেবে অভিনয় করেন ঋত্বিক।

নিজের সফলতা অন্বেষণে এভাবে বেশ কয়েকটি ছবিতে ছোটখাটো চরিত্রে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে নিজেক প্রমাণ করেন তিনি। কারিগরি দিক দিয়ে নিজেকে দক্ষ করতে বাবা রাকেশ রোশনের সঙ্গে সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করেন চারটি ছবিতে।

অপেক্ষা আর ধৈর্যের পর ২০০০ সালে ‘কাহো না… পেয়ার হ্যায়’ ছবিতে তিনি প্রথমবার প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন এবং এ ছবিটি খুলে দেয় তার ভাগ্যের দুয়ার। এরপর শুধুই সাফল্য। সেই সাফল্যগাথার ইতিহাস ঘাঁটা ছেলেটা এবার কঠিন পরীক্ষার সামনে। অপেক্ষা করছেন ফলাফলের জন্য।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
আমাদের চ্যানেল ৩৬৫ ফেসবুক লাইক পেজ