৫ই ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার

বরিশালে তামাকের প্রচারণা নিষিদ্ধ ও নিয়ন্ত্রণ আইনের বাস্তবায়নের দাবি

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

তামাক কোম্পানিগুলোর কৌশলী বিজ্ঞাপনের কারণে উঠতি বয়সী নতুন ধূমপায়ীদের আকৃষ্ট করছে। তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনে সব ধরনের বিজ্ঞাপনের উপর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তারপরও লঙ্গত হচ্ছে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন। এ বিষয়ে সরকার তৎপর রয়েছে। তাই তামাক পন্যের বিজ্ঞাপন ও প্রচারণা নিষিদ্ধ ও নিয়ন্ত্রণ আইনের বাস্তবায়ন দরকার। মঙ্গলবার তামাক জাত দ্রব্যের বিজ্ঞাপন ও প্রচারণা নিষিদ্ধ এবং পৃষ্ঠপোষকতা নিয়ন্ত্রণ আইনের বাস্তবায়ন শীর্ষক প্রকল্পের অবহিতকরণ অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন। গ্রাম বাংলা উন্নয়ন কমিটি, সেভ দ্য কোস্টাল পিপল (স্কোপ) এর বাস্তবায়ন ও দি ইউনিয়ন-ব্লমবার্গ ইনিশিয়েটিভ এর কারিগরি সহায়তা গ্রাম বাংলা উন্নয়ন কমিটির সম্মেলন কক্ষে এই অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। গ্রাম বাংলা উন্নয়ন কমিটির সাবেক সভাপতি ডা: বনলতা মুর্শিদার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন গ্রাম বাংলার নির্বাহী পরিচালক এ.কে.এম মাকসুদ।
অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন প্রকল্পের পরিচালক (কর্মসূচি) খন্দোকার রিয়াজ হোসেন, প্রকল্পের সমন্বয়কারী ও স্কোপের নির্বাহী পরিচালক কাজী এনায়েত হোসেন শিপলু, প্রকল্পের পরিচালক (শিক্ষা) এ.কে এম আলম অপু, ভোলার উন্নয়ন সংগঠক শেখ ফরিদ, আব্দুল মান্নান, পিরোজপুরের রফিকুল ইসলাম বান্না, দি অডেশাস্ এর সভাপতি সাঈদ পান্থ, ঝালকাঠির আতিকুর রহমানসহ পটুয়াখালী, বরগুনার উন্নয়ন সংগঠকরা উপস্থিত ছিলেন।

জানা গেছে- দেশের ৪৫ শতাংশ পুরুষ এবং ১.৫ শতাংশ নারী ধূমপান করে। এছাড়াও ২৬ শতাংশ পুরুষ এবং ২৮ শতাংশ নারী ধূঁয়াবিহীন তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার করে থাকে। এর ফলে দেশের খাদ্য নিরাপত্তা ও পরিবেশ হুমকির সম্মুখীন। এক বিশাল জনগোষ্ঠী তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহারের ফলে সৃষ্ট বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। এর ফলে সৃষ্ট ক্ষয়ক্ষতির আর্থিক মূল্য তামাক ও তামাকজাত পণ্য থেকে আয়ের দ্বিগুণ।

গবেষণায় দেখা যায় যে, তামাক ও তামাকজাত পণ্যের বিজ্ঞাপন, প্রচারণা ও পৃষ্ঠপোষকতামূলক কর্মকান্ড তামাক ও তামাকজাত পণ্যের ব্যবহার বৃদ্ধি করে এবং এ ধরনের কর্মকান্ডের উপর সার্বিক নিষেধাজ্ঞা এর ব্যবহার হ্রাস করে। অন্যভাবে বলা যায় বিজ্ঞাপন প্রচারের ফলে তামাক ও তামাকজাত দ্রব্যের ব্যবহার বৃদ্ধি পায়। শুধুমাত্র তামাক ও তামাকজাত পণ্যের বিজ্ঞাপন, প্রচারণা ও পৃষ্ঠপোষকতামূলক কর্মকান্ডের উপর সার্বিক নিষেধাজ্ঞা (ট্যাপস ব্যান) কার্যক্রমই তামাক ও তামাকজাত দ্রব্যের ব্যবহার প্রায় ৭ শতাংশ কমাতে সক্ষম।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
আমাদের চ্যানেল ৩৬৫ ফেসবুক লাইক পেজ