১৯শে মে, ২০১৯ ইং, রবিবার

ঝালকাঠি পৌর কাউন্সিলর হুমাউন কবিরের খুটির জোর কোথায়!

আপডেট: মে ১, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

ক্রমশ বেপরোয়া হয়ে সন্ত্রসী কর্মকান্ডে অতিষ্ট করে তুলছে ঝালকাঠি পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ডের পৌর কাউন্সিলর হুমাউন কবির ও ৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফারসু এ দুই ভাইর বাহিনীরা। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ছবিসহ আওয়ামী যুবলীগের কার্যালয় এ দুই ভাইয়ের পালিত সন্ত্রসী কতৃক ভাংচুর করার ঘটনায় স্থানীয় আওয়ামীলীগ অঙ্গসংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দের মাঝে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। ইতমধ্যেই কাউন্সিলর দুই ভাইয়ের এহনো সন্ত্রসী কর্মকান্ডের প্রমানসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দদের অবহিত করা হয়েছে বলে স্থানীয় একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছেন। ঝালকাঠি সদর উপজেলার কৃতিপাশা মোড় এলাকার একাধিক উপস্থিত ব্যক্তিরা নাম না প্রকাশের শর্তে প্রতিবেদককে জানান, গত (২৬ এপ্রিল) শুক্রবার গভীর রাতে ঝালকাঠি সদর উপজেলার কৃতিপাশা মোড় ইউনুস মিঞা দোকান সংলগ্ন ওর্য়াড যুবলীগের অফিস ভাংচুর করে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবর রহমানের ছবি ও প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ও ঝালকাঠি-২ আসনের এমপি আলহাজ¦ আমির হোসেন আমুর ছবি ভাংচুর করেও বহল তবিয়াতে তার সন্ত্রসী বাহিনী দিয়ে নিরিহ খেটে খাওয়া ঝালকাঠি জেলা হ্যান্ডলিং শ্রমিক ইউনিয়নের শ্রমীকরা হুমায়ন বাহিনীর নিয়ন্ত্রনে না থাকায় শ্রমীকদের কাজে বাধা প্রধান করে আসছে বলেও তারা জানান। এছারাও তারা আরো জানান, যুবলীগ অফিস কার্যালয় ভাংচুর করার পরে ভারাটে সন্ত্রাসীদের নিয়ে কাউন্সিলর এ দুই ভাই দাম্ভিকতার সাথে বলছেন আমার কথার বাইরে লবনের মিলে কাজ করলে একজনকেও জিবিত রাখবো না আমার হাত কতো লম্বা তা তোমরা বিগত দিনে দেখেছ। নিজেদের কুকর্মের ইতিহাস বীরদর্পে প্রকাশ্যে শিকার করেই উপস্থিত শ্রমিকদের ভয়ভীতি দেখিয়ে উচ্চস্বরে বলে আমির হত্যা কৃতিপাশা রমনাতপুর হাসান হত্যা মামলার আসামি থেকেও টাকা ও ক্ষমতার জোড়ে চার্জশিট থেকে মুক্ত হয়ে আসছি। তাই আমরা যতোদিন বেচে থাকবো আমাদের দুই ভাইয়ের কথার বাহিরে গেলে তোমাদের পরিনতি ভঙ্কার হবে এমনটাই প্রকাশ্যে হুমকি দিয়েছে তারা।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ভুক্তভোগী শ্রমিকেরা কান্নবিজড়িত কন্ঠে প্রতিবেদককে বলেন, স্যার মোগো ঘরে বাজার নাই চাল নাই, স্যার আমনেগো পয়ে দরি মোগো নাম লেইক্কেন না, মোগো জানে মাইরা হালাইবে।
স্থানীয় অভিযোগের প্রেক্ষিতে সরজমিনের অনুসন্ধানে বেড়িয়ে আসে থলের বিড়াল ও চাঞ্চল্যকর সব তথ্য! তাদের দস্যুপনার কাছে পশ্চিম ঝালকাঠি ৬ ও ৭ নং ওয়ার্ডের বাসিন্ধারা এমনকি নির্বাচনেও তাদের বিরুদ্ধে গেলেও ভিটেমাটি ছাড়তে হুমকি প্রদান করেন। যার প্রমান রোববার দিবাগত রাত সাড়ে ৮টার সময় ঝালকাঠি রিপোর্টার্স ইউনিটি কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে করেন দুই ছেলের উপস্থিত ঝালকাঠি পৌর এলাকার ৭ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা জেহাদ বেপারী। উল্লেখ্য, ঝালকাঠি জেলা হ্যান্ডলিং শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচনে তার মেঝ ছেলে কালাম বেপারী বিপুল ভোটে সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হলে তখন সভাপতি পদে নির্বাচিত হওয়া পৌর কাউন্সিলর হুমাউন কবির খান তার চেয়ে কম ভোট পাওয়ায় (কালাম বেপারী) উপর হত্যার উদ্দেশ্যে ন্যাক্কার জনক হামলা চালায় এতে কালাম বেপারীর মাথা ফেটে গুরতর আহত হয়। এছাড়াও চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রমান নিয়ে আগামী পর্বে প্রকাশিত হবে আ’লীগের খাতায় নাম লেখানো ক্ষমতার অপব্যাবহারকারী ৬নং ও ৭নং ওয়ার্ডের পৌর কাউন্সিলর দুই ভাইয়ের অসামাজিক অনৈতিক সংগঠনবিরোধী সকল সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের বিষয় নিয়ে আসছি।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন