১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং, মঙ্গলবার

দিয়াশলাই না দেওয়ায় ছাত্রলীগ নেতা ও তার ভাইয়ের হামলায় আহত পাঁচজন

আপডেট: জুন ১২, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

দিয়াশলাই না দেওয়ায় এক ছাত্রলীগ নেতা ও তার ভাইয়ের হামলায় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) দুই সদস্যসহ পাঁচজন আহত হয়েছেন। আজ বুধবার দুপুরে লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় পাটিকাপাড়া ইউনিয়নের শিমুলতলা ও হাতীবান্ধা ঘটনাটি ঘটে।

এ ঘটনায় উপজেলার পাটিকাপাড়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি বাঁধন পাটোয়ারী ও তার ভাই সাগরসহ চারজনকে আটক করেছে পুলিশ।

আহতরা হলেন-হাতীবান্ধা থানায় উপসহকারী পরিদর্শক নারায়ন চন্দ্র, পারুলিয়ার ইউপি সদস্য আতিয়ার রহমান, ইউপি সদস্য আবুল কালাম, গ্রাম্য পুলিশ নুর মোহাম্মদ ও হামলাকারীর বাবা লিচু মিয়া।

প্রতক্ষ্যদর্শীরা জানান, গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপজেলার পারুলিয়া বাজারে বাঁধন পাটোয়ারী সিগারেট ধরানোর জন্য গ্রাম্য পুলিশ নুর মোহাম্মদের নাতি আরাফাতের কাছে দিয়াশলাই চায়। এ সময় আরাফাত দিয়াশলাই না দেওয়ায় তাকে মারধর করে বাঁধন পাটোয়ারী। পরে গ্রাম্য পুলিশ নুর মোহাম্মদ ও তার ভাই পাটিকাপাড়া ইউপি সদস্য আতিয়ার রহমান বাজারে এসে বাঁধন পাটোয়ারীকে গালিগালাজ করেন।

এ ঘটনার জের ধরে বাঁধন ও তার ভাই সাগর পাটোয়ারী বুধবার সকালে ইউপি সদস্য আতিয়ার রহমান ও গ্রাম্য পুলিশ নুর মোহাম্মদের ওপর হামলা চালায়। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে হাতীবান্ধা হাসপাতালে নিয়ে আসলে হাসপাতালেও হামলা চালায় বাঁধন পাটোয়ারী ও তার ভাই। এ সময় আরেক ইউপি সদস্য আবুল কালাম ও বাঁধন পাটোয়ারীর পিতা লিচু মিয়াসহ তিনজন আহত হয়।

আহত গ্রাম্য পুলিশ নুর মোহাম্মদকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

পুলিশ জানিয়েছে, খবর পেয়ে পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এ সময় হাতীবান্ধা থানায় উপসহকারী পরিদর্শক নারায়ন চন্দ্রও আহত হয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ছাত্রলীগ সভাপতি বাঁধন পাটোয়ারী ও তার ভাই সাগর পাটোয়ারীসহ চারজনকে আটক করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন লালমনিরহাটের সহকারী পুলিশ সুপার (বি-সার্কেল) তাপস সরকার। তিনি জানান, পুরো ঘটনা তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন