৯ই জুলাই, ২০২০ ইং, বৃহস্পতিবার

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে পাল্টাপাল্টি হামলায় আহত-৪

আপডেট: ডিসেম্বর ৯, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক॥বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে এক ছাত্রলীগ নেতার ওপর হামলার ঘটনায় পাল্টাপাল্টি হামলার ঘটনা ঘটেছে। রোববার (৮ডিসেম্বর) রাত ৯টা ১৫ মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী ভোলার রাস্তায় এবং পরবর্তীতে ক্যাম্পাসের সম্মুখে এসব ঘটনা ঘটে।

তবে উভয়পক্ষ থেকে একে অপরকে অভিযোগ করা হয়েছে৷ আহতরা সবাই বর্তমানে নগরীর শেরে বাংলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে।

জানা যায়, প্রথমে ভোলার রাস্তায় ক্যাম্পাস ছাত্রলীগ নেতা গণিত বিভাগের মহিউদ্দিন আহমেদ সিফাত (২৫) ও সমাজবিজ্ঞান বিভাগের আলীম সালেহীর(২৬) ওপর চড়াও হয় একটি পক্ষ।

তারা তখন সিফাতের পিঠে ও হাতে ধারালো ক্ষুর দিয়ে উপর্যুপরি কোপ দেয়। এ ঘটনায় প্রথমে রসায়ন বিভাগের রফিক হাওলাদার (২৩) কে চিহ্নিত করা হয়।

পরবর্তীতে সিফাতের অনুসারীরা ক্যাম্পাসে লাঠিসোঁটা নিয়ে ঝটিকা মিছিল বের করে। এর এক পর্যায়ে ক্যাম্পাসের সম্মুখে রসায়ন বিভাগের শিক্ষার্থী র‌ফিক হাওলাদার(২৩), লোক প্রশাসন বিভা‌গের রুদ্র দেবনাথ(২৪) , ব্যবস্থাপনা বিভা‌গের প্রদীপ কা‌ন্তির(২৩) ওপর হামলা চালায় উত্তেজিত শিক্ষার্থীরা।

এরা সবাই ক্যাম্পাস ছাত্রলীগের ইমন-জিসান গ্রুপের অনুসারী বলে চিহ্নিত।

এ ব্যাপারে সৈয়দ জিসান আহমেদ জানান, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আমার কর্মীদের উপরে আগে হামলা চালানো হয়। বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রফিক হাওলাদারের অবস্থা সংকটাপন্ন।

অন্যদিকে হামলার শিকার আলীম সালেহী জানান, সাবেক ভিসি বিরোধী আন্দোলনের পর থেকে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় শাখার আহবায়ক আল-আমীন সহ শিবির এবং বামদলের কিছু কর্মীদের নিয়ে ছাত্রলীগের রাজনীতি শুরু করে ইমন-জিসান।

সিফাত শুরু থেকেই এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে আসছিল। রোববার মহানগর আওয়ামীলীগের সম্মেলনে যোগদান করতে যাবার সময় এইসব মুজিব আদর্শের বিরোধীদের মিছিলের সামনে দাঁড় করানোর চেষ্টা করে লোকপ্রশাসন বিভাগের আশরাফুল কবীর ইমন ও সৈয়দ জিসান আহমেদ।

তখন এর প্রতিবাদ করা হলে সিফাতকে দেখে নেবার হুমকি দেয় তারা।সেই রাগ থেকেই আল আমীন, ইমন ও জিসানের মদদে রাতে সিফাতের ওপর পরিকল্পিত হামলা চালানো হয়েছে।

রাতেই ক্যাম্পাসে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরবৃন্দ ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের মোতায়েন করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড.সুব্রত কুমার দাস জানান, হামলার ঘটনা শুনেই শিক্ষকদের সাথে নিয়ে আমি ক্যাম্পাসে গিয়েছি।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন