২২শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং, বৃহস্পতিবার

দিল্লিতে গাড়িতে আগুন দিয়েছে পুলিশ!

আপডেট: ডিসেম্বর ১৬, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

দিল্লিতে ছাত্র-পুলিশ সংঘর্ষ চলাকালীন পরিস্থিতি যাতে আরও অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে সেই জন্যে কিছু বাসে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে পুলিশই, এমন চাঞ্চল্যকর অভিযোগ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে। শুধু তাই নয়, ওই দাবির সপক্ষে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে বলে জানিয়েছে সংবাদ মাধ্যমটি। যেখানে দেখা যাচ্ছে একটি বাসে কেরোসিনের জার থেকে কিছু তরল ছিটিয়ে দিচ্ছেন পুলিশ সদস্যরা।

ভারতের রাজধানী নয়া দিল্লির জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা রোববার নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করছিলেন, সে সময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বাঁধে তাদের। রোববার সন্ধ্যায় বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠে দেশের রাজধানী। দক্ষিণ দিল্লির নিউ ফ্রেন্ডস কলোনি অঞ্চলে নয়া নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরোধিতাকারী সহিংস বিক্ষোভকারীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ বাঁধলে এলাকাটি যুদ্ধক্ষেত্রের রূপ নেয়। কিন্তু এরই মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয় ওই ভিডিও যা দেখে দিল্লি পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। ওই ভিডিওতে দেখা যায়, একজন পুলিশ কর্মী নিজেই একটি ফাঁকা বাসে কেরোসিনের জার থেকে কোনও তরল ছুঁড়ছেন।

ছাত্র-পুলিশ সংঘর্ষ চলাকালীন দেখা যায় যে বেশ কয়েকটি বাস ও মটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে; কিন্তু এই ঘটনার বিষয়ে দিল্লির উপ-মুখ্যমন্ত্রী মণীশ সিসোদিয়া সহ অনেকেই অভিযোগ করছেন যে পুলিশেরই কিছু কর্মী এই ভাঙচুর এবং অগ্নিসংযোগের ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে। যদিও পুলিশের পক্ষ থেকে এই ধরণের সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে।

হিন্দিতে টুইট করেন মণীশ সিসোদিয়া যেখানে তিনি লিখেছেন, ‘এই ছবিটি দেখুন … দেখুন কে বা কারা বাসে এবং গাড়িতে আগুন দিচ্ছে … এই ছবিটি বিজেপির করুণ রাজনীতির সবচেয়ে বড় প্রমাণ … বিজেপি নেতারা এর প্রতিক্রিয়ায় কী বলবেন?’।

আর অভিযোগ অস্বীকার করে দিল্লি পুলিশের জনসংযোগ কর্মকর্তা এমএস রান্ধওয়া এনডিটিভিকে বলেন, ‘আপনাকে অবশ্যই পুরো ভিডিওটি দেখতে হবে। বাসের বাইরে আগুন লেগেছে … পুলিশ ওই পাত্রে পানি নিয়ে সেই আগুন নেভানোর চেষ্টা করেছে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন