৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার

‘পুলিশ সেবা সপ্তাহ-২০১৯ ও সিসি ক্যামেরা কন্ট্রোলরুমের উদ্বোধন

আপডেট: জানুয়ারি ২৯, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

মাদকের সঙ্গে পুলিশের কেউ যুক্ত থাকলে তাকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া।

মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর বাড্ডার আফতাব নগর এলাকায় পুলিশ সেবা সপ্তাহ-২০১৯ ও সিসি ক্যামেরা কন্ট্রোলরুমের উদ্বোধন শেষে তিনি এ কথা বলেন।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, পুলিশের কোনো সদস্য যদি মাদকের সঙ্গে যুক্ত থাকে, পৃষ্ঠপোষকতা অথবা সহায়তা করে তা হলে তার বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা নেয়া হবে। যাতে অন্যরাও দেখে ভয় পায়।

অপরাধ শূন্য করতে হলে সিসি ক্যামেরার বিকল্প নেই, উল্লেখ করে তিনি বলেন, জননিরাপত্তা নিশ্চিত করতে গেলে ডিজিটাল নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে হবে। গুলশান, বনানী, বারিধারায় সিসি ক্যামেরা বসানোর ফলে অপরাধ শূন্যের কোটায় এসেছে।

‘তারই ধারাবাহিকতায় আফতাব নগরে একশটি সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। পুরো আফতাব নগর এলাকায় এখন থেকে আর অপরাধ থাকবে না। কেউ অপরাধ করার সাহস পাবে না। করলেও পালিয়ে বাঁচতে পারবে না। খুব সহজে পাকড়াও করা যাবে।’

ঢাকা শহরের অপরাধ কমানোর জন্য ৮০ লাখ নাগরিকের তথ্যসংবলিত একটি ডাটাবেজ তৈরি করা হয়েছে বলে জানান ডিএমপি কমিশনার।

আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ঢাকা শহরের কোথাও মাদকের আস্তানার সন্ধান পাওয়া গেলে তা ভেঙে তছনছ করা হবে। কড়াইল বস্তি ও কারওয়ানবাজারের মতো মাদক আস্তানা গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে। মাদকের লগ্নি কারা করছে তা খোঁজা হচ্ছে। সে যেই হোক না কেন, তার কোমরে রশি পরানো হবে।

এর আগে বাড্ডা ইউলুপ থেকে পুলিশ সেবা সপ্তাহের র‌্যালি নিয়ে আফতাব নগরে আসেন। র‌্যালি শুরুর আগে ডিএমপি কমিশনার বলেন, জঙ্গি, সন্ত্রাস, মাদক ও ভূমি দখলকারীরা যতবড় ক্ষমতাশালীই হোক না কেন, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
আমাদের চ্যানেল ৩৬৫ ফেসবুক লাইক পেজ