৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার

বরিশালে পরীক্ষার ভূয়া প্রশ্নপত্র বিতরণের প্রলোভনে অর্থ সংগ্রহকারী দুই প্রতারক গ্রেফতার

আপডেট: জানুয়ারি ২৯, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

বর্তমানে দেশের বিভিন্ন স্থানে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমের সাহায্য নিয়ে এসএসসি ও অন্যান্য পরীক্ষার প্রশ্নপত্র সংগ্রহ ও বিতরণের প্রলোভন দিয়ে বিপুল পরিমাণ অর্থ সংগ্রহ করছে এবং দেশের শিক্ষা ব্যবস্থার মান ব্যাপক ক্ষতির দিকে সম্মুখীন হচ্ছে। এমন ব্যক্তিদের গ্রেফতারের জন্য র‌্যাব গোয়েন্দা তৎপরতা এবং অপারেশন চালিয়ে আসছে।

এরই ধারাবাহিকতায় সিপিএসসি, র‌্যাব-৮, বরিশাল এর একটি আভিযানিক দল গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর থানা এলাকায় ২৯ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখ ০১.০০ ঘটিকায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর থানাধীন এলাকায় নিজ বাড়ীতে ০২ (দুই) জন ব্যক্তি আসন্ন এসএসসি ও অন্যান্য পরীক্ষার ভূয়াঁ প্রশ্নপত্র সরবরাহকারী চক্রের সদস্য অবস্থান করছে। প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাবের আভিযানিক দলটি ২৯ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখ ০৫.১০ গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর থানাধীন ঢাকপার হইতে ০২(দুই) জন ব্যক্তিকে আটক করে। আটককৃত ব্যক্তিদ্বয়কে জিজ্ঞাসাবাদে তাদের নাম (১) মোঃ তারিকুল ইসলাম(২০), পিতাঃ মোঃ ওহাব শেখ, সাংঃ ঢাকপার, থানাঃ মুকসুদপুর, জেলাঃ গোপালগঞ্জ, (২) মোঃ লিমন(১৯), পিতাঃ গোঞ্জর শেখ, সাংঃ ভাপুরি, থানাঃ মুকসুদপুর, জেলাঃ গোপালগঞ্জ বলে জানায়। মোঃ তারিকুল ইসলাম মৌলভী আব্দুল হাই মেমোরিয়াল স্কুল এন্ড কলেজে এবং মোঃ লিমন সরকারী মুকসুদপুর কলেজে পড়ালেখা করে। তারা স্বীকার করে যে, ভূয়াঁ প্রশ্নপত্র সরবরাহের উদ্দেশ্যে বর্ণিত নিজ বাড়ীতে অনলাইনে কাজ করছে।

গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয়কে জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বীকার করে যে, তাদের নামে ভূয়া ফেসবুক আইডি ও পেইজ রয়েছে। বর্ণিত আসামীদ্বয় কর্তৃক প্রচারিত PSC JSC SSC HSC ALL EXAM HELP LINE নামক পেইজে ভূয়াঁ প্রশ্নপত্র বিক্রয়ের জন্য স্ট্যাটাস দেয়। এছাড়াও তারা বিভিন্ন গোপনীয় গ্রুপ তৈরী করে ভূয়া প্রশ্নপত্রের মাধ্যমে দীর্ঘদিন যাবৎ প্রতারণা করে আসছে। তার দেওয়া স্ট্যাটাস দেখে অনেক সুযোগ সন্ধানী শিক্ষার্থীরা প্রলোভনে পড়ে তার নিকট হতে মোটা অংকের টাকার বিনিময় উক্ত ভূয়া প্রশ্নপত্র ক্রয় করতে উদ্ধুদ্ধ হয়। এরূপ অনৈতিক কাজ করে ধৃত আসামীদ্বয় বিভিন্ন শিক্ষার্থীদের নিকট হতে বিকাশ ও বিভিন্ন পন্থায় বিভিন্ন সময়ে বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে জানায়। তারা প্রথমত বিভিন্ন ফেক একাউন্ট হতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রশ্নপত্র সরবরাহ করবে বলে পরীক্ষার আগে বিভিন্ন পোষ্ট দিত এবং এর জন্য বিভিন্ন শিক্ষার্থীদের নিকট হতে অগ্রীম টাকা গ্রহণ করতো। গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয় এই অনৈতিক কাজে নিয়োজিত হয় বলে স্বীকার করে।

উল্লেখ্য যে, ধৃত আসামীদ্বয়ের দখল হতে উদ্ধারকৃত কম্পিউটার, মোবাইল ফোন, ব্যবহৃত সিমকার্ড ও আসামীদ্বয়ের ফেসবুক আইডি এর তথ্য বিশ্লেষণ করে ধৃত আসামীদ্বয়ের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভূঁয়া প্রশ্নপত্র বিক্রির ব্যাপারে সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়। ধৃত আসামীদ্বয় উপরোক্ত অপরাধের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের সাথে প্রতারণাসহ সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করছে। র‌্যাবের এ ধরণের অভিযান ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
আমাদের চ্যানেল ৩৬৫ ফেসবুক লাইক পেজ