২১শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার

ইরানে দুধের শিশুদের মিছিল!

আপডেট: সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৯

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

ইরানে মহররম মাসের প্রথম শুক্রবার ‘আন্তর্জাতিক আলী আসগর (আ.)’ দিবস হিসেবে পালিত হয়। প্রতি বছরের মতো এবারও দিবসটি পালিত হয়েছে। কারবালা প্রান্তরে ইয়াজিদি বাহিনীর হাতে শহীদ হন ইমাম হুসেইন (আ.)। ইমাম হুসেইন (আ.) এর ছয় মাসের শিশু হজরত আলী আসগর স্মরণে এ দিবস পালন করা হয়।

কারবালায় ইয়াজিদি বাহিনী পানি-অবরোধ করে। এ কারণে শিশু আসগর যখন তৃষ্ণায় ছটফট করছিলেন তখন ইমাম হুসাইন (আ.) তাকে কোলে নিয়ে তাঁর জন্য পানি চান। পানির পরিবর্তে পাষাণ-হৃদয় ইয়াজিদ সেনাদের একজন তিন শাখা-বিশিষ্ট একটি তীর নিক্ষেপ করলে তা আসগরের নরম গলা ভেদ করে। এই পাষণ্ড ঘাতকের নাম ছিল হারমালা বিন কাহিল। বলা হয়ে থাকে ইমাম তাঁর কয়েক ফোটা রক্ত আকাশের দিকে নিক্ষেপ করলে তা কখনও মাটিতে ফিরে আসেনি। বীর মুখতার কয়েক বছর পর হারমালাকে হত্যা করেছিলেন দূর থেকে গলায় ছুরি নিক্ষেপ করে যা এই পাষণ্ডের গলা বিদ্ধ করেছিল।

প্রতি বছর মহররমের সময় বিশ্বের লাখ লাখ মুসলমান হযরত আলী আসগর (আ.)-এরর শাহাদত দিবস পালন করেন শোক মিছিলে শূন্য ও রক্তমাখা দোলনা দুলিয়ে। শোকার্ত মায়েরা তাদের শিশুকে কোলে নিয়ে এই শোক মিছিলে অংশে নেন। ফলে সৃষ্টি হয় হৃদয়-বিদারক শোকের পরিবেশ। এছাড়াও তারা এ সময় শিশু ও অন্যদের মধ্যে দুধ বিতরণ করে থাকেন।

এদিন ইরানি নারীরা কেবল দুগ্ধপোষ্য শিশুকে নয় তাদের ছোট ছোট সন্তানদেরও আসগরের পোশাকে সজ্জিত করে আনেন।

ইরানের পাশাপাশি পাকিস্তান, ভারত এবং ইরাকসহ বহু দেশে মহররম মাসের প্রথম শুক্রবারে পালন করা হয় আন্তর্জাতিক আলী আসগর দিবস।

সূত্র : পার্সটুডে

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
আমাদের চ্যানেল ৩৬৫ ফেসবুক লাইক পেজ