৮ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার

ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত শিশু সায়েম ০১৩১৯-৮৫৫৬১১।

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২১

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন

মোঃ সায়েম, ১৩ বছর। এই বয়সেই ব্লাড ক্যান্সার দেখা দিয়েছে। কয়েকদিন আগে মায়ের সাথে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ মহসিন খানের চেম্বারে আসে। ১ মাস ধরে কাশি আর ৫ দিন ধরে কফের সাথে রক্ত পরছিল। ডাক্তার প্রথমে টিভি রোগ ধারণা করলেও পরে রক্তশূন্যতা দেখে সিবিসি টেস্ট করতে দেয়। এতেই ধরা পরে শিশু সায়েমের ব্লাড ক্যান্সার।
হিমোগ্লোবিন ৫ স্বত্ত্বেও রক্ত না দিয়েই প্রোপার কাউন্সেলিং করে ডাঃ মহসিন শিশুটিকে ঢাকা মেডিকেলের হেমাটোলজি বিভাগে দ্রুত পাঠিয়ে দেন। পরের দিন বিকেলে তারা ঢাকা যায়। বিএসএমএমইউ হাসপাতালের বহির্বিভাগে তারা যায়। গত ১০-১২ দিন তারা ঢাকা ছিলো। অনেক পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়ার পর বহির্বিভাগের ডাক্তার তাদেরকে অন্তঃবিভাগে ভর্তি হতে বলে। ইতোমধ্যে তারা রোগিকে ২ ব্যাগ রক্ত দিয়েছে। এ কয়দিনে তাদের ৬০ হাজার টাকা শেষ। নিজের মাত্র ১ হাজার টাকা সম্বল থাকলেও বাকী টাকাগুলো বিভিন্ন মাধ্যমে সুদের উপরে ধার করে খরচ করেছেন। টাকা শেষ হয়ে যাওয়ায় চিকিৎসা শেষ না করেই লালমোহন ফিরে এসেছে। বৃগস্পতিবার আবার ডাঃ মহসিনের কাছে এসে লালমোহন ভর্তি হতে চায় তারা। ঢাকায় চিকিৎসার ব্যয় বহন করা সম্ভব নয় কৃষক ফারুকের।
ডাক্তার মহসিন শিশুটির চিকিৎসার সহায়তার জন্য নিজের ফেসবুকে সকলের সহযোগিতা চেয়েছেন। তার চিকিৎসায় কয়েক লাখ টাকা লাগতে পারে। এখন পর্যন্ত সঠিক জায়গা পর্যন্ত শিশুটি পৌছাতে পারেনি। বিএসএমএমইউ তে ভর্তির সুযোগ পেয়েও নিজেদের চলার টাকা না থাকায় তারা লালমোহন ফিরে এসেছে।
লালমোহন পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ডের কৃষক মোঃ ফারুকের ৪ ছেলের মধ্যে সায়েম তৃতীয়। মেঝোটা মাদ্রাসায় পড়ে। বড় ছেলে ঢাকায় কাজ করে। তাদের মোবাইল নম্বর ০১৩১৯-৮৫৫৬১১।

  • ফেইসবুক শেয়ার করুন
আমাদের চ্যানেল ৩৬৫ ফেসবুক লাইক পেজ